ওয়েবসাইটে টাইমার কোড কি? কেনো ব্যবহার করা হয় এবং কিভাবে ডাউনলোড করবেন?

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছো সবাই? আশা করছি সবাই অনেক ভালোই আছো। আজকে আমি খুবই চমৎকার একটি বিষয় নিয়ে আপনাদের সাথে শেয়ার করতে এসেছি। 

আমরা সবাই অনলাইনে আয় করতে চাই, কিন্তু বেশির ভাগই আমরা অল্প কিছুদিন পর ভেঙ্গে পরি এবং বন্ধ করে দেই। কিন্তু আমাদের ভেঙ্গে পরা যাবে না, আমাদের পরিশ্রমের সাথে লেগে থাকতে হবে। গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করা যায় এইটা আমরা সবাই জানি এবং অনেকে গুগল থেকে ইনকাম করছেও। আজকে আমরা সেই বিষয়ে আরো একটু মসলা দিয়ে আপনাদের কাছে নতুন একটি চমক নিয়ে এসেছি। তবে বিষয়টি একদমই নতুন নয়, বড় বড় ব্লগার এবং ওয়েবসাইটের অনেকেই এই মশলাদার বিষয়টি ব্যবহার করছে এবং তাদের আয় আরো 2গুন বেশি বাড়িয়ে নিচ্ছে। 

টাইমার কোড কি এবং কেন ব্যবহার করা হয়:

আমরা যেই বিষয়টি আপনাদের সাথে আজকে শেয়ার করবো তা হচ্ছে ওয়েবসাইটে টাইমার ডাউনলোড লিংক সেট করা। আমরা অনেকেই সব সময় দেখে থাকি যে আমরা যদি কোনো সময় কোনো একটি ওয়েবসাইট থেকে কোনো দরকারি কিছু ডাউনলোড করতে যাই, তখন ডাউনলোড লিংকে ক্লিক করলে আমাদের অন্য একটি পেইজে নিয়ে যায় এবং 10 সেকেন্ড, 15 সেকেন্ড অপেক্ষা করতে বলে, অপেক্ষা করার পর আমরা সেই দরকারি জিনিষ টি ডাউনলোড করতে পারি। আবার অনেক সময় ২/৩ টি পেইজে আমাদের অপেক্ষা করানোর পর আমাদের কাঙ্খিত পেইজে আমাদের নিয়ে যাওয়া হয়। বিশেষ করে বিভিন্ন প্রকার মুভি সাইটগুলো, সফ্টওয়্যার ডাউনলোড সাইট, ডিজাইন বা কোনো প্রকার এলিমেন্টস/টেমপ্লেট ডাউনলোড সাইটগুলোতে এইগুলো বেশি লক্ষ করা যায়। আসলে এই সম্পূর্ণ জিনিসটি একটি প্রসেস যার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট এর দর্শকদের কাছ থেকে ইনকাম বেশি করতে পারেন। 

বিষয়টি ২ টি ভাবে কাজ করে থাকে, 

১. মার্কেটিং/ প্রমোশন 

২. ইনকাম বৃদ্ধি 

উপরোক্ত বিষয়টি যদি আপনি একটু চিন্তা করে থাকেন যে, কেনো একটি ওয়েবসাইট থেকে কোনো কিছু ডাউনলোড করার জন্য ৩/৪ টি পেজ ঘুরে তারপর কেনো কাঙ্খিত জিনিষ টি ডাউনলোড করতে হয় ? কেনো সহজ একটি বিষয়কে এতো কঠিন ভাবে তৈরি করা হয় ? আসলে এটি একটি মার্কেটিং বা প্রমোশন এর মত কাজ করে থেকে। 

যেমন ধরুন আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট থেকে কোনো কিছু ডাউনলোড করতে হয় আপনি কিন্তু উক্ত ফাইলটি বা জিনিসটি ডাউনলোড করে ফেলার পর আর সেই ওয়েবসাইটে থাকবেন না, বা সেই সাইটে আরো কি কি জিনিস আছে, কি কি কন্টেন্ট রয়েছে সেই গুলোও কিন্তু খুব কম মানুষই ঘুরে দেখে। আর এই জন্যই যদি আপনার একটি ওয়েবসাইট বেশি পপুলার বা জনপ্রিয় হয়ে থাকে, যদি আপনার কোনো একটি ওয়েবসাইটে প্রতি দিন অনেক ভিজিটর আসছে, এখন আপনি নতুন একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেছেন । যেইটা নতুন হওয়ার কারণে ভিজিটরের পরিমাণ তুলনামূলক কম, সেই ক্ষেত্রে আপনি এই প্রসেসটি ব্যবহার করে আপনার নতুন ওয়েবসাইটের মার্কেটিং বা প্রমোশন করতে পারেন। আপনি আপনার জনপ্রিয় ওয়েবসাইটের কোনো একটি পোস্ট বা কোনো ডাউনলোড লিংক থেকে ডাইভার্ট করে আপনার নতুন সাইটে নিতে পারেন এবং সেই সাইটে 10 সেকেন্ড এর মতো আপনার ভিজিটরদের অপেক্ষা করতে পারেন । এতে আপনার নতুন ওয়েবসাইটের নতুন ভিজিটর পাওয়ার পাশাপাশি আপনার নতুন ওয়েবসাইটের ইম্প্রেশনও বৃদ্ধি পাবে। 

যদিও আপনি এই কাজটি আরো অনেকভাবেই করতে পারেন, আপনার পপুলার সাইটের কোনো একটি পোস্ট, পেজ বা অন্য কোনো ভাবে ইন্টারলিংকিং করেও করতে পারেন। তবে আমি মনে করি উপরের প্রসেসটি এটি থেকে বেশি স্মার্ট এবং কার্যকরী। 

২. নম্বর যেই বিষয়টি সেটি হচ্ছে ইনকাম বৃদ্ধি। 

বিষয়টি আপনাদের সাথে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করার চেষ্টা করি। যেমন আমরা যদি আমাদের ওয়েবসাইটে কোনো প্রকার কন্টেন্ট বা কোনো ডাউনলোড করার মতো সামগ্রী আপলোড করি। তখন যদি কোনো ভিজিটর সেই সাইটে এসে সেই কাঙ্খিত জিনিসটি ডাউনলোড করতে চায় তাহলে তার মূল লক্ষ্য কিন্তু হচ্ছে ওই জিনিসটি ডাউনলোড করা, তার মানে হচ্ছে যদি ডাউনলোড সম্পূর্ণ হয়ে যায় তাহলে কিন্তু ভিজিটর আর ওয়েবসাইটে থাকবে না। আর আমরা জানি যে যদি গুগল এডসেন্স এর ইনকাম এর মূল বিষ়বস্তু হচ্ছে যে, যখন আপনার ওয়েবসাইটে অ্যাড শো করবে তখন যেই ভিজিটর আপনার সাইটে আসবে সে আপনার ওয়েবসাইটে এসে আপনার ওয়েবসাইটে থাকা অ্যাডগুলো দেখছে এতে গুগল আপনাকে কিছু অর্থ দিচ্ছে।

এইখানে ভিজিটর যত বেশি আপনার ওয়েবসাইটে থাকবে এতে আপনার সাইটের ইম্প্রেশন গুগলের কাছে বৃদ্ধি পাবে এবং যখন একটি পেজ থেকে অন্য একটি পেজে ট্রান্সফার করে নেয়া হয় এবং সেইখানেও 10/15/20 সেকেন্ডের মত ভিজিটরদের অপেক্ষা করতে হয়, এতে ভিজিটরদের হচ্ছে কি, যেহেতু ভিজিটরের জিনিসটি দরকার এবং যদি সে একটু কষ্ট এবং অপেক্ষা করে সেই জিনিসটি ফ্রীতে পাবে। তারা তাদের সেই প্রয়োজনীয় জিনিষ টি ফ্রীতে ডাউনলোড করার জন্য কিন্তু অবশ্যই আপনার দেয়া সময়মতো ওয়েবসাইটে অপেক্ষা করবে এবং তার সেই দরকারি জিনিসটি সে ডাউনলোড করবে। আর এই পন্থাকে কাজে লাগিয়ে একটি পেজের সাথে অন্য একটি পেজে ট্রান্সফার করে এবং সেই পেজে 10/15 সেকেন্ড অপেক্ষা করানোর মাধ্যমে ইনকাম বৃদ্ধি করা সম্ভব।

সবাই কম বেশি এই জিনিষ গুলো লক্ষ করে থাকবেন এবং অনেকেই হয়তো এইগুলো ব্যবহার করে আপনাদের ব্লগ বা ওয়েবসাইটের ইনকাম বৃদ্ধি করছেন। কিন্তু যারা জানেন না যে কিভাবে আপনারা এই টাইম কোড আপনার ব্লগ সাইটে ব্যবহার করবেন তারা আজকে শিখে যাবেন বা জেনে যাবেন। টাইম কোড ব্যবহার করার জন্য একটি HTML কোড ফাইলের দরকার পরবে। 

টাইম কোড HTML File ডাউনলোড করুন ! 

ডাউনলোড করার পর আপনাকে এটি এডিট করে আপনার পেজ ব্যবহার করতে হবে। এখন কিভাবে আপনি এই টাইম কোডটি এডিট করবেন এবং আপনার সাইটে ব্যবহার করবেন এইটার জন্য খুব শীঘ্রই আমরা একটি ভিডিও তৈরি করবো আপনাদের জন্য যেখানে আমরা আপনাদের বোঝানোর চেষ্টা করবো কিভাবে আপনি এই HTML কোড ফাইলটি এডিট করে ব্যবহার করতে পারবেন। 

আজকের মত এই পর্যন্তই, আমাদের ব্লগটি পড়ে যদি আপনাদের একটু উপকারে আসে তাহলেই আমরা সার্থক। এবং আপনারা আরো কি কি জিনিষ জানতে চান এবং কি কি জিনিষ আপনাদের দরকার সেইগুলো কমেন্ট করে আমাকে জানাবেন এতে করে আমি আপনাদের জন্য সেইগুলো নিয়ে হাজির হবো। 

ধন্যবাদ 🥰।  

আমাদের অন্যান্য পোষ্টসমূহঃ

ইউটিউবে ১০,০০০ সাবস্ক্রাইবার পাওয়ার সহজ কৌশল !!!Pinterest- এ অর্থোপার্জনের ৬টি উপায় (ব্লগিং এবং ব্লগিং ছাড়া)

Comments